সর্বশেষ

নোয়াখালীতে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ নষ্ট করে টয়লেট নির্মাণের অভিযোগ

লোকসংবাদ প্রতিনিধি
নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের বানদত্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ ও জনসাধারণের চলাচলের পথ নষ্ট করে টয়লেট নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। গতকাল বৃহস্পতিবার সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, বানদত্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি দুইটি একতলা পাকা ভবন রয়েছে। এর মধ্যে পূর্ব পাশের ভবনটির সামনের খেলার মাঠে চলছে শিক্ষার্থীদের জন্য টয়লেট নির্মাণের কাজ। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর প্রায় আটলাখ টাকা ব্যয়ে ওই টয়লেটটি নির্মাণ করছে।
স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বিদ্যালয়ের দুইটি ভবনের মাঝখানে বেশকিছু পরিত্যক্ত জায়গা পড়ে থাকলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ ওই জায়গায় টয়লেট নির্মাণ না করে ছাত্রছাত্রীদের খেলার মাঠ নষ্ট করে সেখানে টয়লেট নির্মাণের জন্য স্থান নির্বাচন করেছেন।
তা ছাড়া নির্মাণাধীন টয়লেটের পেছনে সেপ্টিট্যাংক করতে গিয়ে বিদ্যালয়ের পাশ দিয়ে যাওয়া জনসাধারণের চলাচলের রাস্তাও সংকুচিত করে ফেলা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তিনি এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে ‘সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে’ মামলায় জড়ানোর হুমকি দেন।
একাধিক অভিভাবক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘শিশুদের মেধা বিকাশের জন্য পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলাও প্রয়োজন। আর খেলাধুলা করার জন্য বিদ্যালয়ে মাঠ থাকা জরুরী। আবার শিক্ষার্থীদের জন্য টয়লেটও প্রয়োজন। খেলার মাঠ নষ্ট না করে কিভাবে টয়লেট নির্মাণের জায়গা বের করা যায়, সে বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করলে ভাল হত।’
প্রধান শিক্ষক এ টি এম সামছুল হক সেলফোনে বলেন, ‘দুই ভবনের মাঝখানে যে ফাঁকা জায়গার কথা বলা হচ্ছেÑ সেখানে টয়লেট নির্মাণের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নেই। তাই ব্যবস্থাপনা কমিটির সঙ্গে আলোচনা করেই মাঠের এক পাশের জায়গায় টয়লেট নির্মাণের জন্য নির্বাচন করা হয়েছে। তবে, এ নিয়ে তিনি স্থানীয় কাউকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন।’
অপরদিকে, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নোয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রওশন আলম বলেন, ‘একটি প্রকল্পের আওতায় প্রায় আটলাখ টাকা ব্যয়ে ছাত্রছাত্রীদের জন্য ওই টয়লেট নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যে স্থান নির্ধারণ করে দেন, সেখানেই টয়লেট নির্মাণ করা হয়। প্রকল্পের ডিজাইন পরিবর্তনের কোন সুযোগ নেই।’
#

  • অমৃত লাল ভৌমিক সুমন

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.