সর্বশেষ

নোয়াখালীতে কৃতী ফুটবল খেলোয়াড় ও সংগঠকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার,দুষ্ট কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবিতে ও ফুটবল লীগ নিয়ে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে খেলোয়াড়দের মানববন্ধন।।

লোকসংবাদ প্রতিবেদন
নোয়াখালীতে কৃতী ফুটবল খেলোয়াড় ও সংগঠকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার,দুষ্ট কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবিতে ও ফুটবল লীগ নিয়ে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে নোয়াখালীর খেলোয়াড়রা মানববন্ধন করেছে।
নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামের সামনের  প্রধান সড়কে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা হতে ঘন্টাব্যাপী  এ  মানববন্ধনে অংশ নেয় নোয়াখালী খেলোয়াড় কল্যান সমিতির সদস্য ও জেলার সর্বস্তরের খেলোয়াড়রা ।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া খেলোয়াড়রা অভিযোগ করেন , নোয়াখালীতে দীর্ঘ চারবছর পর শুরু হওয়া ফুটবললীগ কিছু কর্মকর্তার স্বার্থপরতা ও চক্রান্তে ভেস্তে যেতে বসেছে। লীগ কমিটির কর্তারা নিজেরাই লীগের বিভিন্ন দলের ম্যানেজার ও ক্লাব কর্মকর্তার সক্রিয় দায়িত্ব পালন করতে যেয়ে প্রায়ই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাচ্ছেন;নিজেদের পছন্দ মতো নিম্নমানের ও পক্ষপাতকারী রেফারি দিয়ে  খেলা চালাচ্ছেন এবং এর প্রতিবাদ করলে মাঠে ঢুকে খেলোয়াড়দের মারধর পর্যন্ত করছেন।

সর্বশেষ গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ান প্রত্যাশি আগমনী ক্লাবের সাথে শক্তপ্রতিদ্বন্দ্বী বাদ্রার্স ইউনিয়নের খেলায় আগমনী ক্লাব ১-০ গোলে এগিয়ে গেলে খেলার শেষার্ধে লাইন্সম্যানরা ব্রাদার্স ইউনিয়নকে অফ-সাইড কল না করে অফসাইড হতে বার বার গোলের সুযোগ দিতে থাকে ,এবং আগমনী ক্লাবের খেলোয়াড়রা গোল করতে এগিয়ে গেলে লাইন্সম্যানরা ইচ্ছাকৃতভাবে আগমনী ক্লাবের বিরুদ্ধে ফ্ল্যাগ উঠিয়ে অফসাইড কল করতে থাকে  এবং এক পর্যায়ে লাইন্সম্যানদের অসততার সুযোগে নোয়াখালী ব্রাদার্স  ইউনিয়ন পরিষ্কার অফ-সাইড হতে পরপর ২টি গোল দিয়ে এগিয়ে গেলে আগমনী ক্লাবের খেলোয়াড়রা এর প্রতিবাদ করতে থাকে।

এ সময় লীগ কমিটি ও বাদ্রার্স ইউনিয়নের সদস্য ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের ম্যানেজার সাজেদুল আলম দিপুসহ অন্যরা আগমনী ক্লাবের জার্সি পরিহিত খেলোয়াড়দের মাঠে ঢুকে আক্রমণ করে ; এ সময় পুলিশ এসে আক্রমণকারী লীগের কর্মকর্তাদের প্রহার করে সরিয়ে নিয়ে গেলেও আর খেলা শুরু করা সম্ভব হয়নি।

এরপর রাত্রিতে ডিএফএ (ডিস্ট্রিক ফুটবল এসোসিয়েশান)এর কর্মকর্তা সাজেদুল আলম দিপু বাদী হয়ে  আগমনী ক্লাব ও জেলা দলের অধিনায়ক সাহেদুল করিম কিরণ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ করিম লিটনসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে থানায়  ছিনতাই ও মারধরের মিথ্যা মামলা করলে পুলিশ রাতে খেলোয়াড় প্রবীর(২৬)কে আটক করে সকালে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

মানববন্ধনে খেলোয়াড়রা অনতিবিলম্বে দুষ্ট কর্মকর্তাদের অপসারণ ও শাস্তি এবং ফুটবল লীগ পুনরায় চালুর জোর দাবী জানায়।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.