সর্বশেষ

রেল লাইনে আগুন \ গাড়ি থেকে নামিয়ে সংবাপত্রে আগুন \ আটক ৫ নোয়াখালীতে ১৮ দলীয় জোটের ডাকে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলছে

বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মো. শাহজাহান ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুককে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে নোয়াখালীতে ১৮ দলীয় জোটের ডাকে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলছে।
ভোর থেকে পিকেটাররা জেলা শহরের সোনাপুর, দত্তের হাট, মাইজদী পৌর বাজার, মাইজদী বাজার, নতুন বাসষ্টান্ড বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নিয়ে যানবাহন চলাচলে বাধা সৃস্টি করে। সকাল ৭টায় নোয়াখালী-লাকসাম রেলপথের মাইজদী কোর্ট ষ্টেশনের সামনে রেললাইনে আগুণ দিয়ে বিক্ষোভ করে ছাত্রদলের কর্মীরা। এর আগে সকাল ৬টা ২০ মিনিটে নোয়াখালী ষ্টেশন থেকে ঢাকাগামী উপকূল এক্সপ্রেস ছেড়ে যায় বলে জানান নোয়াখালী ষ্টেশন মাস্টার মানিক লাল দাস।
সোনাইমুড়ি বাজারে পিকেটাররা সংবাপত্রবাহী গাড়ি থেকে নামিয়ে সংবাপদপত্রে আগুন দেয়। বেগমগঞ্জ, সেনবাগ, চাটখিল ও কোম্পানীগঞ্জেও হরতালে যান চলাচলে বাধা সৃস্টি করছে পিকেটাররা।

হরতালের কারনে শহরে রিক্সা-সাইকেল ছাড়া ভারি কোন যানবাহন চলাচল করছে না। অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। অফিস আদালত ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্তিতি সংখ্যা কম লক্ষ্য করা গেছে।

সকাল ৯টায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. হারুনুর রশিদ আজাদের নেতৃত্বে হরতালের সমর্থনে শহরে বের করছে বিএনপি ও অংঙ্গ সংসঠনের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর পৌর বাজারের সামনে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা মো. হারুনুর রশিদ আজাদ, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, আবু নাছের, ভিপি জসিম উদ্দিন, নুরুল আমিন খান, আবু হানিফ, আবদুল করিম মুক্তা। ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সকাল থেকে হরতালের সমর্থনে শহরে খন্ড খন্ড মিছিল বের করছে। নাশকতা এড়াতে শহরে বিজিবি ও পুলিশ টহল দিচ্ছে।

ভারপ্রাপ্ত পুলিম সুপার মাহবুুবুর রহমান জানান, হরতালে নাশকতা সৃস্টির আশংকায় জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের ৫ জনকে আটক করে।


  • আবু নাছের মঞ্জু

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.