সর্বশেষ

লক্ষ্মীপুরে বিভিন্ন স্থানে মিছিল, ককটেল বিস্ফোরণ, টায়ারে অগ্নিসংযোগের মধ্যে দিয়ে হরতাল পালিত হচ্ছে

লক্ষীপুর থেকে মো.রাজীব হোসেন রাজু
ককটেল বিস্ফোরণ, টায়ারে অগ্নিসংযোগ, রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলার মধ্যে দিয়ে লক্ষ্মীপুরে বিএনপি সহ ১৮ দলীয় জোটের ডাকা সোমবার সকাল সন্ধ্যা হরতাল শেষ।
সকাল থেকে শহরের মিয়ার রাস্তার মাথায় ও বাসটার্মিনাল এলাকায়, উত্তর তেমুহনী, দক্ষিণ তেমুহনী, ইটেরপোল, দালাল বাজার, চন্দ্রগঞ্জ ও জেলার রায়পুর, রামগঞ্জ, রামগতি ও কমলনগর উপজেলা সহ বিভিন্ন স্থানে পিকেটররা গাছের গুড়ি ও টায়ারে অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে সড়কে অবরোধ করে রাখে। এছাড়া পিকেটিং ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা। এসময় বিভিন্ন স্থানে বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।
সকাল ৮ টায় শহরের আলীয়া মাদ্রাসার সামনে জামায়াত-শিবিরের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে, রবিবার রাতে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ বাজারের কাছে পুলিশের সাথে পিকেটারদের সংঘর্ষ হয়, এসময় পুলিশ দু’রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষেপ করা হয়, এসময় পুলিশসহ আহত হয় ৩জন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশি ব্যবস্থা জোড়দার রয়েছে। এদিকে, সোমবার ও মঙ্গলবার বিএনপির ডাকা সকাল সন্ধা হরতালকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুর শহরে রবিবার রাতে কয়েকটি স্থানে বিাভ মিছিল বের করে ছাত্রদল এবং যুবদল, এসময় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরনের চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়ে, হামলা চালিয়ে অন্তত ৬টি গাড়ী ভাংচুর করে তারা। তবে এসময় কাউকে আটক করতে পারেনী পুলিশ।
অপরদিকে, হরতাল সমর্থনে সদর উপজেলার ১৭নং ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির উদ্যোগে সদর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক সাইফুদ্দিন খালেদ’র নেতৃত্বে ভবানীগঞ্জ বাজারে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন ১৭নং ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সহিদুল আলম স্বপন, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ্ ছগীর করিম ছগীর, সদর উপজেলা পূর্ব ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল মাহামুদ, ইউনিয়ন যুবদলের আহব্বায়ক মোঃ এস এম আজাদ, যুগ্ম আহব্বায়ক রাজু, একরাম, যুবদল নেতা মিরাজ, শিপন, রিপন, বাবুল, ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি মেহেদী হাছান, সাংগঠনিক সম্পাদক নাছির, ইউনিয়ন শ্রমীক দল নেতা হারুন, স্বপন প্রমূখ।
এছাড়াও হরতাল সমর্থনে লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্র দলের উদ্যোগে রবিবার রাতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে, উত্তর তেমুহনী গিয়ে শেষ হয়। এসময় লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হারুনুর রশিদ হারুন, সদর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি মোছাদ্দেক হোসেন বাবর প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। একই সময় জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান মামুনের নেতৃত্বে হরতাল সমর্থনে একটি মিছিল বের করে ভাংচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে, এসময় মিছিলটি থেকে অন্তত ৪টি গাড়ী ভাংচুর করা হয়, এছাড়াও সদর উপজেলার দালাল বাজারে ছাত্রদল মিছিল বের করে দুটি গাড়ী ভাংচুর করার খবর পাওয়া গেছে।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.