সর্বশেষ

নোয়াখালীতে চুরি-ছিনতাই ও মাদকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসক-পুলিশ সুপারকে স্মারকলিপি প্রদান

।। অমৃত লাল ভৌমিক সুমন ।।
নোয়াখালী জেলা শহরের মাস্টার পাড়া এলাকায় সামাজিক অবক্ষয়, চুরি-ছিনতাই, ইভটিজিং ও মাদক সেবীদের দৈরাত্মের বিরুদ্ধে গ্রামবাসী মানববন্ধন করেছে। গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় মাস্টার পাড়া থেকে ৫’শতাধিক লোক মৌন মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কার্যালয় সম্মুখে মানববন্ধন করে। মানববন্ধন শেষে জেলা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবরে প্রায় চার শতাধিক গণস্বাক্ষরসহ চিহ্নিত প্রায় ১৫ সন্ত্রাসীর নাম ঠিকানা উল্লেখ করে একটি স্মারকলিপি প্রদান করে। পরে স্মারক লিপির একটি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুধারামকেও দেয়া হয়। মানববন্ধনে পৌর মেয়র হারুনুর রশিদ আজাদ সংহতি প্রকাশ করে। 
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মাস্টার পাড়া গ্রামের বাসিন্দা অ্যাডভোকেট গোলাম আকবর, প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ, পৌর মেয়র হারুনুর রশিদ আজাদ, এস.আই এবি আবদুল মতিন, ব্যবসায়ী মো. ইমাম হোসেন মনু, ব্যবসায়ী নূরুল হাই লিটন, শাহাদাৎ হোসেন রুবেল, কনট্রেক্টার জাবেদ, ব্যবসায়ী খোকন, ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর, প্রমুখ। বক্তারা বলেন, মাস্টার পাড়া এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এতই অধপতন হয়েছে যে, এখানে বসবাস করা দুরহ হয়ে পড়েছে। তারা বলেন এ যাবৎকাল পুলিশ প্রশাসনকে মৌখিক ও লিখিত অভিযোগ করেও আশানুরুপ কোন প্রতিকার পাওয়া যায় নি। বক্তারা আরও বলেন, গত শুক্রবার স্থানীয় এলাকাবাসী প্রতিকার ও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে গ্রামে একটি মৌন মিছিল করে। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল রবিবার চার শতাধিক গণস্বাক্ষরসহ এবং চিহ্নিত ১৫ জন সন্ত্রাসীর নাম ঠিকানা উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান করেছে।

এ সময় পৌর মেয়র সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ‘আমি স্বীকার করছি মাস্টার প্রাড়া এলাকায় চাঁদাবাজি, ছিনতাই, চুরি ও ইভটিজিং হরহামেশা হচ্ছে। যার কারণে আমি নিজেই আজ স্থানীয়দের সাথে মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেছি। তবে আগামী দিনে পুলিশ প্রশাসনের সাথে এবং গ্রামবাসির সাথে এ সামাজিক অবক্ষয়কে প্রতিহত করতে একসাথে কাজ করবো। আশা করছি পুলিশ প্রশাসন তড়িৎ ব্যবস্থা নেবে।’

পুলিশ সুপারকে স্মারক লিপি প্রদান শেষে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুধারাম থানাকে স্মারক লিপি দিতে গেলে দেখা যায় গত বুধবার স্থানীয় আবদুল মতিনের নির্মাণ কাজে বাধা ও চাঁদাদাবি কালে স্থানীয় লোকজনের ধাওয়াতে পালিয়ে যাওয়া একই গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে শুভকে ভিন্ন গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে স্থানীয় লোকজনের সাথে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহেদুল হক রনি আগামী দিনে মাস্টার পাড়ার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রে একযোগে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন। 

এ সময় ওসি জাহেদুল হক রনি সাংবাদিকদের বলেন, প্রতিদিন মাস্টার পাড়ার নানা ক্রাইমের সাথে জড়িত গড়ে দু’একজনকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। আবার ওখানকার বেশ দাপটশালী নেতারা ছাড়িয়ে নিয়ে যান। যেহেতু আজ (রবিবার) স্থানীয় লোকজন একতাবদ্ধ হয়েছে এবং লিখিত পেয়েছি। সে হিসেবে আগামী দিনে ঐ এলাকায় টহল আরও জোরদার করা হবে এবং আগামী দিনে পুলিশ গ্রামবাসীর সাথে একতাবদ্ধ হয়ে কাজ করবে। এছাড়া তিনি গ্রামবাসীর উদ্দেশে বলেন, তারাও যেন এলাকাতে নিজেদের উদ্যোগে কমিউনিটি পুলিশের ব্যবস্থা করে এবং পুলিশকে সহযোগিতা করে। 
#
  

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.