সর্বশেষ

লক্ষ্মীপুরে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার না করায় সংবাদ সুম্মেলনে জেলা আওয়ামীলীগের ক্ষোভ

রবিউল ইসলাম খান, লক্ষ্মীপুর 
লক্ষ্মীপুর জেলা সাম্প্রতিক সময়ে সন্ত্রাসীদের আনাগোড়া বৃদ্ধি, ও তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা না নেওয়ায় বিশেষ কিছু হামলা,ভাংচুর,লুটপাটের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে, জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যেগে শনিবার বিকেলে জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সুম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব এম আলাউদ্দিন।

আওয়ামীলীগ সভাপতি বলেন. গত ২২ মে রবিবার, সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের ফরাশগঞ্জ বাজারে ২৪/২৫ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাতদল আজাদ-বেলালের নেতৃত্বে বাজারে অতর্কিত হামলা চালিয়ে নূর আলম জিকু, হারুনুর রশিদ, আবুল কালাম, নূরুল ইসলাম নামে ৪ জন ব্যবসায়ীকে গুরুতর জখম করে। তারা বর্তমানে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ সময় ডাকাতরা বাজার লুট করে হারুনের দোকান নগদ ৭০ হাজার টাকা সহ মূল্যবান মালামাল ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদ চত্বর, নন্দনপুর, দত্তপাড়া সহ বিভিন্ন স্থানে সংহিসতা বেড়ে যায়।
 উপজেলা চত্বরে লক্ষ্মীপুর পৌর কাউন্সিলর প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা, মু্ক্তিযোদ্ধা সুজায়েত উল্যাহ কমিশনারের ওপর গত ২৫ মে পূর্বপরিকল্পিতভাবে শামীম-আনোয়ার বাহিনী আক্রমণ করে। হামলায় প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সুজায়েত উল্যাহ কমিশনারের মাথা গুরুতর জখম হয়। বর্তমানে সুজায়েত উল্যাহ কমিশনারের পরিবার আতংক ও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। নন্দনপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থী মীর শাহ আলমকে গত ১৫ মে ফরিদ বাহিনী হামলা করে চোখে-মুখে বেদম প্রহার করে গুরুতর জখম করে। সে বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত ১৬ মে দত্তপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলাল হোসেন ও তার স্ত্রী সহ কয়েক কর্মীকে শামীম-আনোয়ার বাহিনী বেদম প্রহার করে।
লক্ষ্মীপুরের শান্ত পরিবেশকে কতিপয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী অশান্ত করে তুলেছে। ভোটারদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। সন্ত্রাসী ও দুস্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পুলিশ নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। এসব ঘটনায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে। অবিলম্বে চিহ্নিত সকল সন্ত্রাসীদেরকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার জোর দাবি জানায়।
সংবাদ সুেলনে উপস্থিত ছিলেন , সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট নূরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোজাম্মেল হায়দার মাসুম ভূঁইয়া, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহম্মদ চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি দেলোয়ার হোসেন নিশাদ ভূঁইয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক বেলায়েত হোসেন বেলাল, কুশাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নূরুল আমিন, সহ-সভাপতি মোশাররফ হোসেন ও সফিউল্যা মেম্বার, যুগ্ম সম্পাদক দিল মোহাম্মদ, শাহজাহান সিরাজ, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কামাল হোসেন প্রমূখ।্

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.