সর্বশেষ

আওয়ামীলীগের দাবি পরিকল্পিত ঘটনা সেনবাগ বাজারে অগ্নিকান্ডে ১১টি দোকান পুড়ে ছাঁই

নোয়াখালীর সেনবাগ বাজারে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে বিএনপির কার্যালয়ের কাছাকাছি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমরান হোসেন চৌধুরী প্রকাশ বাবুদের মালিকানাধীন দোকান ঘরের সাতটি কক্ষসহ ১১টি দোকান সম্পূর্ণরূপে পুড়ে যায়। এতে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা দাবি করেছেন।
আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আহম্মদ চৌধুরী দাবি করেছেন, অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি পরিকল্পিত। পুড়ে যাওয়া ঘরগুলোর বেশিরভাগ দোকান মালিকও আওয়ামী লীগ সমর্থক। পরিকল্পিতভাবে তাঁদের দলের নেতা ও সমর্থকদের সর্বশান্ত করতে ওই আগুন লাগানো হতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সোয়া বারটার দিকে সেনবাগ দক্ষিণ বাজারের রুবেলের কনপেক্শনারীর ভেতর প্রথম আগুন দেখা যায়। মুহুর্তের মধ্যে আগুন আশেপাশের দোকান ছড়িয়ে পড়ে। তাৎক্ষনিক বাজারের লোকজনও চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে ব্যর্থ হন।
দমকল বাহিনীর চৌমুহনী স্টেশন অফিসার শাহদাত হোসেন জানান, খবর পেয়ে রাত সাড়ে বারটার তারা এসে দীর্ঘ দুইঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হন। কিন্তু ততক্ষনে আগুনে ওই কনপেক্শনারী, ভাইভাই ট্রেডার্সসহ ১১টি দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়।
উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমরান হোসেন চৌধুরী দাবি করেন, আগুনের ঘটনাটি রহস্যজনক। পরিকল্পিতভাবেই তাঁদের নিঃস্ব করতে কেউ ওই ঘটনা ঘটিয়েছে।
সেনবাগ থানার ওসি নজিবুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজনের তথ্যমতে; মশার কয়েলের আগুন কিংবা বিদ্যুতের শটসার্কিট থেকে ওই অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হয়েছে। এর সঙ্গে অন্যকোন উদ্দেশ্য জড়ানো অমুলক।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.