সর্বশেষ

গান্ধী দর্শন কোন দিনই পুরনো হওয়ার নয়/ নোয়াখালীতে গান্ধী আশ্রমে দক্ষিন এশীয় যুব শান্তি ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন- অহিংসার মধ্যদিয়েও যে একটি জাতি স্বাধীনতা অর্জন করতে পারে আমাদের পাক-ভারত উপমহাদেশই তাঁর দৃষ্টান্ত। আজকের বিশ্বে গান্ধীর অহিংস নীতি কতটা প্রাসঙ্গিক যুবদের তা জানাতে হবে। তবেই দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠায় যুবরা অগ্রণীয় ভূমিকা রাখতে পারবে। টেকসই উন্নয়নের লক্ষে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ মোকাবেলা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় মহাত্মাগান্ধীর অহিংস নীতি সবসময় অনুসরণীয় হয়ে থাকবে।
তিনি গতকাল রোববার দুপুরে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার জয়াগ গ্রামে গান্ধী আশ্রমে ছয়দিন ব্যাপী দক্ষিণ এশিয় যুব শান্তি ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা দানকালে এসব কথা বলেন।
দীপু মনি বলেন, মহাত্মাগান্ধীর নৈতিক শিক্ষা, দর্শন কোন দিনই পুরনো হওয়ার নয়। আমরা যখনই মানবাধিকার, ন্যায় বিচার ও আইনের শাসনের কথা বলব; তখনই গান্ধীজীর নীতি প্রাসঙ্গিকতা আমাদের সমানে চলে আসে। গান্ধীজী আততায়ীর গুলিতে নিহত হওয়ার পুর্বমুহুর্তেও প্রভুর কাছে হত্যাকারীর ক্ষমার প্রার্থণা করে গেছেন।
গান্ধী আশ্রম বোর্ড অব ট্রাস্টের সভাপতি বিচারপতি গোর গোপাল সাহার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের সচিব ঝর্ণা ধারা চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের শিল্প ও বানিজ্যমন্ত্রী জীতেন্দ্র লাল চৌধুরী, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার রাজিত মিত্র, ভারতের গান্ধী পিস ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. এফ এন শুভ্যা রাও, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক সিরাজুল হক।
গান্ধী আশ্রম ট্রাস্টের পরিচালক রাহা নব কুমারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান সুপ্র’র জাতীয় কমিটির সভাপতি আবদুল আউয়াল, সোনাইমুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আ ফ ম বাবু প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় দীপু মনি আরো বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার যুবসমাজ শান্তির অন্বেষায় নোয়াখালীর এই নিবৃত গাঁয়ে একসাথ হওয়া একটি ঐতিহাসিক ঘটনা হয়ে থাকবে। এই ক্যাম্পের মধ্যদিয়ে অংশগ্রহনকারী যুবরাও নিজ নিজ দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কাজ করবেন। তিনি বলেন, আমাদের দেশের মানুষ সবসময় শান্তিকামী। আমাদের পররাষ্টনীতিতেও আমরা সকলের সাথে বন্ধুত্ব; করো সাথে শত্রুতা কিংবা বৈরিতা নয়, এই নীতিতে বিশ্বাসী। আওয়ামী লীগও অহিংসার নীতিতে গভীরভাবে বিশ্বাস করে। তাই দলের গঠনতন্ত্রে সামপ্রদায়িক স¤প্রীতির বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। আমাদের এই আদর্শ দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে।
ছয়দিন ব্যাপি দক্ষিন এশীয় এই যুব শান্তি ক্যাম্পে বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা ও নেপালের দুইশ’র বেশী যুব প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করবেন।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.