সর্বশেষ

বিএনপি’র ডাকা সকাল সন্ধ্যা হরতাল।। নোয়াখালীতে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও পুলিশের লাঠিচার্জে আহত ২৪, গাড়ি ভাংচুর, আটক ২৯

নোয়াখালীতে গাড়ি ভাংচুর, টাইয়ারে আগুন দিয়ে সড়ক অবরোধ, হরতালের পক্ষ-বিপক্ষ দলের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, পুলিশের লাঠিচার্জ, নেতাকর্মীদের আটক এবং শহরে ছাত্র ও যুবলীগের মটর সাইকেল মহড়ার মধ্যদিয়ে হরতাল পালিত হচ্ছে। এ পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ২৪ জন আহত, ২৯ জন আটক ও ২টি গাড়ি ভাংচুরের খবর পাওয়া গেছে।

সকালে সদর উপজেলার সোনাপুর কলেজের সামনে হরতালে পক্ষে বের করা মিছিলে পুলিশের লঠিচার্জে শহর বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও নোয়াখালী পৌর সভার প্যানেল মেয়র দেলোয়ার হোসেন, সোনাপুর কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি সহিদ উল্যা সহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়।


বেলা ১১টার দিকে সোনাইমুড়ী উপজেলার আবির পাড়া বাজারে হরতালের পক্ষে ছাত্রদলের মিছিলে ছাত্র ও যুবলীগের হামলায় ছাত্রদলের ১০ জন কর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে সিরাজ, সুমন ও নিরুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ১২টার দিকে কাশিপুর বাজারে হরতালের পক্ষে ও বিপক্ষে মিছিলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় উভয় পক্ষের অন্তত ৪ জন আহত হয।

পিকেটাররা জেলা শহর মাইজদীতে একটি বাস ও বেগমগঞ্জ উপজেলার আমিন বাজারে একটি অ্যাম্বুলেন্স ভাংচুর করে।

দুপুরে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহানের নেতৃত্বে হরতালের পক্ষে জেলা শহরে একটি বিশাল মিছিল বের হয়। মিছিল শেষে নিজ বাসায় মোহাম্মদ শাহজাহান অভিযোগ করেন-পুলিশ জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে হরতালে পিকেটিংয়ের সময় দলীয় নেতাকর্মীদের আটক করে তাদের বিভিন্ন মামলায় জড়ানোর চেষ্টা করছে। এসময় জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক পৌর মেয়র হারুনুর রশিদ আজাদ, শহর বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক আবু নাছেরসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে গতরাত থেকে পুলিশ জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ২৯ জন নেতাকর্মীকে আটক করে।



  • আবু নাছের মঞ্জু

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.