সর্বশেষ

ইস্যু কলেজ ছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফুটেজ ছাড়নোর ঘটনায় বসুরহাট মুজিব কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্র“পের মধ্যে সংর্ঘর্ষে আহত ৫।। আটক ২

নোয়াখালীর বসুরহাট সরকারি মুজিব কলেজের এক ছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফুটেজ বিভিন্ন মোবাইল ফোন ও অনলাইনে ছাড়ানোকে কেন্দ্র করে সোমবার দুপুরে ছাত্রলীগের দুই গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়। আহতরা হলেন-সজল, জাবেদ, নোমান, তারিন, আবদুল্লাহ। খবর পেয়ে বসুরহাট পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের নেতা আবদুল কাদের মির্জা পুলিশসহ ক্যাম্পাসে গিয়ে ছাত্রলীগের জাবেদ ও তারিনকে আটক করে পুলিশে দেয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সরকারি মুজিব কলেজের ছাত্রলীগ কর্মী রকি, সজল, রাকিব, ফয়সালসহ আরও কয়েকজন ছাত্র দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফুটেজ ২৬ অক্টোবর বিভিন্ন মোবাইল ফোন ও অনলাইনে ছেড়ে দেয়।  ৫২ সেন্ডের ঐ ভিডিও ফুটেজ প্রকাশের পর থেকে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ ব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষ ইংরেজির প্রভাষক আল বেরুণী, রসায়নবিদ্যার প্রভাষক আবদুল কাদের ও বাংলার প্রভাষক অশ্র“মনি সাহাকে সদস্য করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। ঐ কমিটি এখনো প্রতিবেদন দাখিল করেননি।
সোমবার সকালে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সরকারি মুজিব কলেজে ছাত্রলীগ নেতা নোমান গ্রুপ সজলকে ভিডিও ফুটেজের জন্য দায়ী করে কলেজ ক্যাম্পাসে মারধর করে। পরে ছাত্রলীগ নেতা সজল গ্রুপ সংগঠিত হয়ে নোমান গ্রুপের সাথে সংর্ঘর্ষ বেধে যায়। ঘন্টাব্যাপী সংর্ঘর্ষ চলাকালে শিক্ষার্থীরা দিকবেদিক ছুটাছুটি করে ক্যাম্পাস থেকে চলে যায়। এক পর্যায়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ আওয়ামী লীগ নেতাদেরকে খবর দিলে সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আবদুল কাদের মির্জা পুলিশ নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এ সময় আবদুল কাদের মির্জা ছাত্রলীগ নেতা জাবেদ ও তারিনকে নিজ হাতে আটক করে পুলিশকে দেয়। পরে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান তারিনের অভিভাবকসহ থানায় গিয়ে মুসলেকা দিয়ে জিম্মায় চাড়িয়ে নেয়। জাবেদকে থানায় আটক করে রাখা হয়।

সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আবদুল কাদের মির্জা জানান, মুজিব কলেজে ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে ছাত্রদের দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য তিনি দু’জনকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছেন। ইভটিজিংয়ের ব্যাপারে শক্ত প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এনিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য সন্ধ্যায় উপজেলা আ’লীগের দলীয় কার্যালয়ে জরুরী সভা আহ্বান করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান মিন্টু বলেন, ছাত্রদল ও শিবিরের কর্মীরা ছাত্রলীগের সাথে থেকে কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিং করে ছাত্রলীগের ভাবমুর্তি নষ্ট করছে। বিষয়টি আমরা রাজনৈতিকভাবে বিএনপি ও জামায়াতের নেতাদেরকে অবহিত করবো।

#


  • আবু নাছের মঞ্জু

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.