সর্বশেষ

জলবায়ু বিপর্যয় থেকে উপকূলীয় দুর্গতদের বাঁচানোর দাবি।। নোয়াখালীতে জলবায়ু ন্যায্যতার দাবিতে ব্যতিক্রমধর্মী মানববন্ধন


জলবায়ু ন্যায্যতার দাবিতে নিজেদের বুকে ও পিঠে বিভিন্ন স্লোগান লিখে রোববার নোয়াখালীতে তরুণরা ব্যতিক্রমধর্মী মানববন্ধন করে। কার্বন নির্গমন কমাও, দুর্গতদের ক্ষতিপূরণ দাও, পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি দাও, নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে সহায়তা দাও, অতিরিক্ত গাড়ি ব্যবহার বন্ধ করো, জীবাস্ম জ্বালানি ব্যবহার কমাও, ভোগ হার হ্রাস করো, দরিদ্র দেশে বর্জ্য প্রেরণ বন্ধ করো, জলবায়ু উদ্বাস্তুদের উন্নত দেশে অভিবাসনের অধিকার দাও ও আর আলোচনা নয়, এখন কাজ করো এ ১০টি দাবি নিয়ে দুপুরে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে গ্রামীণ জীবনযাত্রার স্থায়িত্বশীল উন্নয়নের জন্য প্রচারাভিযান (সিএসআরএল)-এর সহযোগিতায় হিউম্যানিটিওয়াচ ও পাটিসিপেটরি রিসার্চ এন্ড অ্যাকশন নেটওয়ার্ক-প্রান এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।
মানববন্ধন শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তাগন বলেন, বাংলাদেশের দরিদ্র জনসাধারণ জলবায়ু পরিবর্তনের নির্মম শিকার। ক্রমবর্ধমান হারে নি¤œচাপের কারণে সমুদ্রগামী জেলেদের জীবন ও জীবিকা হুমকির মুখে পড়েছে। নোয়াখালীসহ উপকূলীয় অঞ্চলে পৌনপৌনিক ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, নদীভাঙন, লবণাক্ততা বৃদ্ধি ও আবহাওয়ার অনিয়মিত পরিবর্তনের ফলে কৃষক, শ্রমজীবীসহ প্রাকৃতিক সম্পদনির্ভর সাধারণ মানুষের জীবন দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে।
প্রতিবছর কমপক্ষে ২ লক্ষ মানুষ জলবায়ু উদ্বাস্তু হয়ে বড়ো বড়ো শহরগুলো ছাড়াও পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে অভিবাসনে বাধ্য হচ্ছে। আইপিসিসি আশঙ্কা, সমুদ্রপৃষ্ঠের স্ফীতির ফলে আগামী ২০৫০ সাল নাগাদ উপকূলীয় অঞ্চলের কমপক্ষে ১৭ ভাগ এলাকা নোনাপানিতে তলিয়ে যাবে এবং প্রায় ২ কোটি অধিবাসী উদ্বাস্তুতে পরিণত হবে। শিল্পোন্নত দেশগুলোর কল-কারখানা, অতিরিক্ত জীবাস্ম জ্বালানি ব্যবহার, কাগজ ও বিলাস-সামগ্রীর জন্য ক্রমবর্ধমান হারে বৃক্ষনিধন এবং অতিরিক্ত ভোগের কারণে মাত্রাতিরিক্ত গ্রীনহাউজ গ্যাস নির্গমনের ফলে জলবায়ুর এ বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে। বিজ্ঞানীদের মতে, বাতাসে কার্বনের পরিমাণ ৩৫০ পিপিটিতে নামিয়ে আনতে না পারলে বিপর্যয় রোধ করা যাবে না।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এনআরডিএসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা অমল কৃষ্ণ অধিকারী, ফিরোজ আনোয়ার অপু, সাংবাদিক রুদ্র মাসুদ, জামাল হোসেন বিষাদ, প্রাণের প্রোগ্রাম অফিসার নাছিমা মুন্নী, তাপস মজুমদার, ফজলুল হক সুমন।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.