সর্বশেষ

নোয়াখালীতে মানবাধিকার পরিস্থিতি ভয়াবহ অবনতি ।। সেপ্টেম্বর মাসে হত্যা ৯, আত্মহত্যা ৩, হত্যা চেষ্টা ৭ ও সন্ত্রাসী হামলা ১০ টি

চলতি বছরের আগস্ট মাসের তুলনায় সেপ্টেম্বর মাসে নোয়াখালীতে মানবাধিকার পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসে নোয়াখালীতে ৫৩ টি মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনার মধ্যে রয়েছে হত্যা, আত্মহত্যা, হত্যাচেষ্টা, সন্ত্রাসীহামলা, রাজনৈতিক সহিংসতা, ডাকাতি, ছিনতাই, ধর্ষণ, অপহরণ, দস্যুতার মত ঘটনা। এসব ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১৬০ জন লোক। যার মধ্যে ১৩০ জন পুরুষ, ২৪ জন নারী ও ৬ টি শিশু। জেলার সদর উপজেলায় সর্বাধিক (১১টি) মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও সেনবাগে ৯ টি, চাটখিলে ও বেগমগঞ্জে ৭ টি, কোম্পানীগঞ্জে ৬ টি, সুবর্ণচর ও সোনাইমুড়ীতে ৪ টি, হাতিয়ায় ৩ টি এবং কবিরহাট উপজেলায় ২ টি করে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে।
উন্নয়ন সংগঠন পার্টিসিপেটরি রিসার্চ এন্ড অ্যাকশান নেটওয়ার্ক (প্রান) স্থানীয় ও জাতীয়ভাবে প্রকাশিত বিভিন্ন সংবাদপত্রের আধেয় বিশ্লেষণ করে এ রিপোর্ট প্রকাশ করে। মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলোর মধ্যে রয়েছে সন্ত্রাসীহামলা ১১টি, হত্যা ৯টি, হত্যাচেষ্টা ৭টি, রাজনৈতিক সহিংসতা ৬টি, ডাকাতি ৫টি, আত্মহত্যা ৩টি, চাঁদাবাজি , সম্পদ দখল ও ছিনতাই ২টি, বাল্যবিবাহ, চুরি, লুট, ধর্ষণ, অপহরন ও উচ্ছেদের মত ঘটনা গুলো ঘটেছে ১টি করে। এসব ঘটনা বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, এ সকল ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পেছনে জমি সংক্রান্ত বিরোধ, যৌতুক, পরকীয়াপ্রেম, পূর্বশত্রুতা, রাজনৈতিক কোন্দল মূল কারন হিসেবে কাজ করেছে। সুপারি পাড়াকে কেন্দ্র করে, জমিতে গরু ফসল নষ্ট করা, শ্রমিক তার মজুরি চাওয়ার মত ক্ষুদ্র ঘটনা কে কেন্দ্র করে মানুষ হত্যার মত ঘটনা ঘটেছে। এ সময়ে নোয়াখালীর চরাঞ্চলে বাশার মাঝি পরবর্তী যুগে নাসির কেরানির নেতৃত্বে বনদস্যুরা সংঘটিত হয়ে  চরাঞ্চলে ব্যাপক লুটপাট সন্ত্রাসী কার্যকলাপ অব্যাহত রেখেছে। বনদস্যুদের তান্ডবে চরাঞ্চলে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.