সর্বশেষ

নোয়াখালী মেডিক্যাল কলেজে শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন, বিক্ষোভ মিছিল


শিক্ষক সংকট, নিজস্ব একাডেমিক ভবন, আবাসন সমস্যার সমাধানসহ চার দফা দাবিতে নোয়াখালী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা শনিবার সকালে অধ্যক্ষের কক্ষ, একাডেমিক ভবন ও ক্লাসরুমে তালা ঝুলিয়ে দেন। এ সময় শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে জেলা শহরে মাইজদীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। পরে তাঁরা কলেজ প্রাঙ্গণে এসে সমাবেশ করেন।

নোয়াখালী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা জানায়, আগামী জুনে তাঁদের প্রথম প্রফেশনাল পরীক্ষা। কিন্তু তাঁদের কলেজে অ্যানাটমি ও বায়োকেমিস্ট্রির কোনো শিক্ষক নেই। ফিজিওলজি বিভাগে মাত্র একজন শিক্ষক ক্লাস নিচ্ছেন। অথচ দুই মাস পরেই এ তিন বিষয়ে তাঁদের পরীক্ষা দিতে হবে। ক্লাস ছাড়া তাঁরা কিভাবে পরীক্ষা দেবেন- সব শিক্ষার্থীর এখন একটাই প্রশ্ন। এ ছাড়া মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের পুরনো ভবনে কোনো রকমে দায়সারাভাবে ক্লাস চলছে। শুধু শিক্ষক সংকটই নয়, এ মেডিক্যাল কলেজের নিজস্ব একাডেমিক ভবনও তৈরি হয়নি। এ ছাড়া রয়েছে আবাসন সংকট। ছাত্রীরা থাকছেন ডাক্তারদের জন্য নির্ধারিত ভবনে। ছাত্ররা ক্যাম্পাসের বাইরে ভাড়া করা বাড়িতে থাকেন। শিক্ষক সংকটের কথা তাঁরা দীর্ঘদিন অধ্যক্ষসহ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলেও শিক্ষক সংকটের সুরাহা হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে তাঁরা কলেজ ক্যাম্পাসে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে রাস্তায় এসে বিক্ষোভ করছেন।
শনিবার বেলা ১১টায় শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল জেলা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে মেডিক্যাল কলেজ ক্যাম্পাসে অবস্থান ধর্মঘট করে সেখানে সমাবেশ করেন।
এ বিষয়ে নোয়াখালী মেডিক্যাল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. সানাউল্যাহ শিক্ষক সংকটের কথা স্বীকার করে বলেন, শিক্ষার্থীদের সব দাবি ন্যায়সংগত এবং যুক্তিযুক্ত। বিষয়টি যথাযথ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও সমাধানের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন বলে তিনি জানান। তিনি আরো জানান, মেডিক্যাল কলেজ স্থাপনের দেড় বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো এর কোনো অর্গানোগ্রাম তৈরি হয়নি। ডিজি অফিস বিভিন্ন স্থান থেকে ডাক্তারদের প্রেষণে এনে এখানে ছাত্রছাত্রীদের ক্লাস নিচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে অ্যানাটমির শিক্ষক স্ট্যান্ডরিলিজ হয়ে ছাড়পত্র না নিয়েই বরিশালে চলে গেছেন।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.