সর্বশেষ

চরের খাস জমি পেলেন নোয়াখালীর ১০৭ ভূমিহীন


নোয়াখালীর উপকূলীয় চরের ১০৭ জন ভূমিহীনের মাঝে খাসজমির দাগ খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক মো: মিজানুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে ভূমিহীনদের মাঝে বন্দোবস্তকৃত কৃষি জমির মালিকানার খতিয়ান তুলে দেন।
এ উপলক্ষ্যে সকালে কেয়ার বাংলাদেশ ও সাগরিকা সামাজ উন্নয়ন সংস্থার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপত্বি করেন নির্বাহী কর্মকর্তা সানাউল হক। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেয়ার বাংলাদেশ’র আঞ্চলিক সমন্বয়কারী এস .এম খালেকুজ্জামান, সাগরিকা সমাজ উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক এম. এ আব্দুল মতিন, চরক্লার্ক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খায়রুল আলম সেলিম, ভূমিহীন বেগম জরিনা, আলা উদ্দিন, কবির মেস্ত্রী। ‘

      জমির খতিয়ান হাতে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়েন অনেক ভূমিহীন। চরবাটার ভুমিহীন কৃষক আমিন উল্লা বলেন,এতদিন অবৈধ দখলদার আছিলাম, মনে মনে নিজেরে অপরাধী মনে অই-ত। আইজ এই খতিয়ানের মাধ্যমে চরের খাস জমির বন্দোবস্ত হাই আনন্দে বুক ভরি গেছে। এইবার অন্তত বৌ-হোলাহাইন লই শান্তিতে থাইকবার জায়গা হাইলাম।’

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানায়, ইউএসএআইডির আর্থিক সহযোগিতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ও কেয়ার বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে সৌহার্দ্য কর্মসূচীর আওতায় চরক্লার্কের ৪৪ জন, চরজব্বারের ২১ জন ও চরজুবলী ইউনিয়নের ৪২টিসহ ১০৭টি ভূমিহীন পরিবারের মাঝে সরকারি খাস খতিয়ানের ১৩৯ একর ৩৪ শতক জমি স্থায়ী বন্দোবস্তের দাগ-খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.