সর্বশেষ

কোম্পানীগঞ্জে সিএনজি শ্রমিকদের ধর্মঘটে গাড়ী ও দোকান ভাংচুর, আহত-৫

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সিএনজি শ্রমিকদের ১০ দফা দাবীতে ডাকা ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সিএনজি শ্রমিকর ২টি গাড়ী ও একটি দোকান ভাংচুর করে। এসময় যাত্রী ও ড্রাইভারসহ ৫ জন আহত হয়। ভাংচুরের ঘটনায় কোম্পানীগঞ্জ থানায় ২টি পৃথক পৃথক অভিযোগ দায়ের করা হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে ধর্মঘট চলাকালে বসুরহাট বাজারের পুরাতন বাসষ্ট্যান্ডে একটি সিএনজিতে রোগী নিয়ে আসার পথে শ্রমিকরা বাধা দিলে যাত্রী শ্রমিকদের মধ্যে সংর্ঘর্ষে সৃষ্টি হয়। শ্রমিকরা একটি সিএনজি ও একটি বাস ভাংচুর করে। এসময় যাত্রী ও ড্রাইভারসহ ৫জন আহত হয়। আহতদের কোম্পানীগঞ্জে বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। সিএনজি মালিক সমিতির পক্ষ থেকে বিকেল ৫টায় মাইকিং করে অনির্দিষ্টকালের জন্য সিএনজি বন্ধ ঘোষণা করলে শ্রমিক খলিলের নেতৃত্বে ৬/৫জন সিএনজি মালিক সমিতির সেক্রেটারী সোহাগ চৌধুরীর তেলের দোকান চৌধুরী অয়েল ভাংচুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে আসলে শ্রমিকেরা পালিয়ে যায়।

অন্যদিকে পুুরাতন বাসষ্ট্যান্ডসহ বসুরহাট বাজারের বিভিন্ন সড়কে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। ধর্মঘটের কারনে কোম্পানীগঞ্জে দূর-দূরাত্বের যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পড়তে হয়।

এব্যাপারে সিএনজি মালিক সমিতির সেক্রেটারী সোহাগ চৌধুরী জানান, মালিক পক্ষ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সিএনজি বন্ধ ঘোষনা করা হয়। এছাড়া আমার দোকান ভাংচুর ও সিএনজি ভাংচুরসহ যাত্রীদেরকে মারধরের কারণে আমি বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

প্রসঙ্গত: রবিবার সন্ধ্যায় সিএনজি মালিক সমিতি অফিসে শ্রমিকেরা তাদের ১০দফা দাবী দিলে মালিক পক্ষ তা মেনে না নেওয়ায় সোমবার থেকে অনির্দ্দিষ্ট কালের জন্য ধর্মঘটের ডাকা হয়। 

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.