সর্বশেষ

চাটখিলে পুলিশ-ডাকাতের ঘন্টব্যাপী বন্দুক যুদ্ধে ওসিসহ আহত ৫।। ৫টি বন্দুক, ৩৩ রাউন্ড গুলিসহ ডাকাতির সরঞ্জাম উদ্ধার, ৪ ডাকাত গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর চাটখিলে রোববার ভোররাতে ডাকতের সাথে পুলিশের ঘন্টব্যাপী বন্দুক যুদ্ধে চাটখিল থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হুমায়ুন কবির ও ৫ ডাকাত আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫টি দেশীয় তৈরী বন্দুক, ৩০ তাজা কার্তুজ, ৩ খোসা, ১টি ধারালো চাপাতি ও বেশ কিছু ডাকাতির সরঞ্জামসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ৪ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে। এরা হচ্ছে শহিদুল ইসলাম কিরন(২৭), শহিদুল ইসলাম শহিদ(২২), ইউসুফ ওরফে মিন্টু(২৮) ও রাসেল(২৪)। গ্রেপ্তারকৃতদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যপারে চাটখিল থানায় অস্ত্র ও ডাকাতি আইনে পৃথক দ’ুটি মামলা হয়েছে।
দুপুরে নিজ সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার হারুনুর রশিদ হাযারী জানান, চাটখিল উপজেলার প্রসাদপুর গ্রামের সোমপাড়া কলেজের পাশে আজহার উদ্দিনের সুপারি বাগানে বসে রাত আড়াইটার দিকে ১৪-১৫ সদস্যের একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে খবর পেয়ে চাটখিল থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের ঘিরে ফেলে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে। এসময় পুলিও পাল্টা ২০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে ডাকাত দলের অন্যান্য সদস্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হয়ে পড়ে থাকা শহিদুল ইসলাম কিরন, শহিদুল ইসলাম শহিদ, ইউসুফ ওরফে মিন্টু ও রাসেল পুশিল গ্রেপ্তার করে। সকালে গ্রেপ্তারকৃতদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম কিরনের বাড়ি চাটখিলের গোফাইবাগ গ্রামে। সে  অস্ত্র ও ডাকাতি আইনে দায়েরকৃত একাধিক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী, ইউসুফ ওরফে মিন্টুর বাড়ি একই উপজেলার সোমপাড়া গ্রামে, রাসেলের বাড়ি দশানী টগবা গ্রামে এবং শহিদুল ইসলাম শহিদের বাড়ি চট্রগ্রামের সাতকানিয়া থানায়।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.