সর্বশেষ

সড়ক অবরোধ, ভংচুর ও জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াজেদ ইবনে ইমনকে পিটিয়ে আহত ।। নোয়াখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ছাত্রশিবিরের সাংগঠনিক থানা শাখার সভাপতি সহ নিহত ২

নোয়াখালী সদর উপজেলার সোনাপুর মাইজদী সড়কের সোনাপুর জিরো পয়েন্টে রোববার সকালে যাত্রিবাহী দু’টি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাংগঠনিক থানা শাখার সভাপতি আবুল কাশেম আনছারী (২২) ও বাবুন বাসের চালক সুমন (৩০)। আনছারী কেরামতিয়া আলিয়া মাদ্রাসার ফাজিল দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও সদর উপজেলার পুর্ব শুল্লুকিয়া গ্রামের মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে। এসময় বাসযাত্রী ও পথচারীসহ আরো অন্তত: ২০ জন আহত হয়।
এ ঘটনার প্রতিবাদে শিবির কর্মীরা সড়ক অবরোধ, ভংচুর ও জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াজেদ ইবনে ইমনকে পিটিয়ে আহত করে। আশংকাজন অবস্থায় তাকে প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে ইমনকে ঢাকায় নেয়ার সময় অসহযোগিতার অভিযোগে বিক্ষুদ্ধ ছাত্রলীগ কর্মীরা হাসপাতালের এক ব্রাদারকে মারধর করে। ইমনের উপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ বিকেলে জেলা শহরের বিক্ষোভ মিছিল করে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সুধারাম থানার সেকেন্ড অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, সকাল ৯টার দিকে উপকূল এক্সপ্রেস নামে একটি বাস সোনাপুর জিরো মোড় অতিক্রমকালে চট্টগ্রাম-সোনাপুর রুটের বাবুন পরিবহণ নামে অন্য একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাপা দিলে দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় সেখানে থাকা ৩টি রিকশা ও একটি মোটরসাইকেল ধুমড়ে মুছড়ে যায়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে মাদ্রসা ছাত্র ও শিবির কর্মীরা সোনাপুর-মাইজদী সড়ক অবরোধ ও ভাংচুর করে। এসময় ছাত্রদের সঙ্গে বাসষ্ট্যান্ডের শ্রমিকদের কয়েক দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় শিবির কর্মীরা জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াজেদ ইবনে ইমনকে পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে সুধারাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

লোকসংবাদ | Loksangbad | The First Bangla Online Newspaper from Noakhali সাজসজ্জা করেছেন মুকুল | কপিরাইট © ২০১৫ | লোকসংবাদ | ব্লগার

Bim থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.